fbpx

ক্যারিয়ার ডেভেলাপমেন্টে মিট আপ প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করা কেন জরুরী?

মিট আপ প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করা কেন জরুরী
Knowledge

ক্যারিয়ার ডেভেলাপমেন্টে মিট আপ প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করা কেন জরুরী?

যেখানে আমরা যোগ্যতার প্রতিযোগিতা করতে পারি, সেখানে আমরা খুব ভালো কিছু আশা করতে পারি ।

— জেমস এল বারকসডেল

যেকোন মিট আপ বা গেট টু গেদার, মানুষের জীবনের একঘেয়েমি দূর করে নুতন কর্মোদ্দিপনা জাগাতে টনিকের মত কাজ করে। অনেক সময় কোন কারন ছাড়াই মানসিক প্রশান্তির জন্য মিনিট পাঁচেকের দেখা সাক্ষাত, আলাপ, ঘুরাঘুরি ,মানুষের মন এবং শরীরের ক্লান্তি দূর করে দেয় নিমিষেই। আর তা যদি হয় কোন ক্যারিয়ার ডেভেলাপমেন্ট সম্পর্কিত মিট আপ তাহলেতো কোন কথাই নেই। তাহলে জেনে নেওয়া যাক , কেন আসবো এই মিট আপ প্রোগ্রামে !!

মিট আপ কি এবং কেন করা হয়?

Meet up এর বাংলা অর্থঃ হঠাৎ দেখা হয়ে যাওয়া। যেকোন মিট আপ প্রোগ্রামগুলো হয় মূলত একটি ইভেন্টের সাথে জড়িত সকলদের গেট টুগেদার করার জন্য। যেন নতুন পুরাতন সকলদের মাঝে মিল বন্ধনের পাশাপাশি স্কিল এবং ক্যারিয়ার ডেভেলাপ করার সুযোগ পাওয়া যায়।

মিট আপে কেন যাবেন?

নিজেদের পরিচিতি বাড়ানোর পাশাপাশি বিশেষ করে যারা লেজেন্ড স্পিকার যারা প্রগ্রামে আসবেন, তাদেরকে সামনাসামনি দেখা তাদের সাথে কথা বলা এবং তাদের অভিজ্ঞতার কথা,পরামর্শ শোনা ইত্যাদি বিশেষ আনন্দের তো বটেই। যা কেবল মিট আপ প্রোগ্রাম গুলোর মাধ্যমে সম্ভব। তাহলে দেখে নেওয়া যাক মিট আপ প্রোগ্রামগুলোতে আসলে কেন অংশগ্রহণ করা জরুরি!!

১. সঠিক ক্যারিয়ার গাইডলাইন

সঠিক ক্যারিয়ার গাইডলাইনের অভাবে অনেক সম্ভাবনাময় ফ্রিল্যান্সারদের ভবিষ্যৎ হুমকির মুখে পড়ে। তাই একজন ফ্রিল্যান্সার যেন কোর্স চলাকালীন সময়ে অথবা কাজ করার পাশাপাশি একটি সঠিক গাইডলাইন পেয়ে নিজেকে সেভাবে গড়ে তুলতে পারেন মিট আপ প্রোগ্রামগুলোতে মূলত সেই প্রচেষ্টায় থাকে। এধরনের প্রোগ্রামে অংশগ্রহণের মাধ্যমে আপনি একটি সঠিক ক্যারিয়ার গাইডলাইন পাবেন। যার দ্বারা আপনি ক্যারিয়ার সম্পর্কে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সক্ষম হবেন।

২. প্রবলেম সলভিং সঠিকভাবে পরিচালনা করা

অধিকাংশ সময় দেখা যায় একজন ফ্রিল্যান্সারগন প্রজেক্টে কাজ করার সময় প্রবলেম সলভিং সঠিকভাবে পরিচালনা করতে ব্যর্থ হন।  যার কারণে ক্লায়েন্ট তার প্রজেক্ট নিয়ে সম্পূর্ণ সন্তুষ্ট হতে পারেন না । এভাবে একজন ভালো ফ্রিল্যান্সারের রেপুটেশন দিন দিন কমতে থাকে। একজন ফ্রিল্যান্সার প্রজেক্ট করার সময় কিভাবে problem-solving করেন, তার পুরো ধারণা মিট আপ প্রোগ্রামে পাবেন।

৩. ট্রেনিং

মানুষের ব্যবহারের সঠিক প্রয়োগ, তার সফলতা অর্জনের অন্যতম হাতিয়ার। ব্যক্তিজীবনে আচরণগত অনেক ত্রুটি আমাদের প্রফেশনাল জীবনে নানা সমস্যা সৃষ্টি করে। মিট আপ প্রোগ্রামগুলোতে দেশের স্বনামধন্য ট্রেইনার দ্বারা ইন্টার পার্সোনাল বিহেভিওর সম্পর্কিত ট্রেনিং পরিচালনা করা হয়। যা ব্যক্তিগত জীবন থেকে শুরু করে প্রফেশনাল জীবনের অনেক সমস্যাই সমাধান করতে সক্ষম হবে । এই সমস্ত হাই কোয়ালিটি সম্পন্ন ট্রেনিংগুলো বাহিরে থেকে করতে গেলে আমাদের অনেক বেশি মুল্য দিয়ে করতে হয়। কিন্তু মিট আপ প্রোগ্রামগুলোতে যা আপনি একদম ফ্রি তে করতে পারবেন।

৪. কর্পোরেট কালচার বিল্ড আপ

একটি কর্পোরেট কালচার বিল্ড আপের মাধ্যমে সকলের সাথে নিজেকে পরিচিত হবার একটি সুযোগ যা আপনার ক্যারিয়ারের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। লেজেন্ডদের সাথে বাস্তবে নেটওয়ার্কিং করার সুবর্ণ সুযোগ থাকে মিট আপ প্রোগ্রামগুলোতে। ভার্চুয়ালি অনেক পরিচিত জন আছেন যাদের সাথে বাস্তবে সাক্ষাত করার অনেক ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও সম্ভব হয়ে উঠেনা। যা কেবলমাত্র মিট আপ প্রোগ্রামের মাধ্যমে করা সম্ভব।এই আনন্দ এবং উচ্ছ্বাস এর সাথে কোন কিছুর তুলনা হয়না।

৫. এন্টারপ্রেনারশিপ এবং লিডারশিপ কোয়ালিটি স্কিল গ্রো করা

চাকরি করব না। চাকরি এবার দেব। এই মূলমন্ত্র কে সামনে রেখে প্রোগ্রামগুলোতে আয়োজন করা হয় এন্টারপ্রেনারশিপ এবং লিডারশিপ কোয়ালিটি স্কিল গ্রো আপ সেশন। যারা ভবিষ্যতে একটি আইটি ইন্ডাস্ট্রি প্রতিষ্ঠিত করার স্বপ্ন দেখেন তাদের জন্য সেশনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর মাধ্যমে জানতে পারবেন একটি আইটি প্রতিষ্ঠান কিভাবে পরিচালিত হয়।  প্রোগ্রাম থেকে পাওয়া রিসোর্স দিয়ে আপনি একজন লিডার হতে যা যা দরকার তাঁর পুরো প্লানকে ঢেলে সাজিয়ে ফেলতে পারবেন।

৬. গিফট ও লাঞ্চ

এসমস্ত মিট আপ প্রোগ্রামগুলোতে প্রচুর পরিমানে সুন্দর ও আকর্ষনীয় গিফট পাওয়া যায়। এছাড়াও থাকে লাঞ্চ এবং স্ন্যাক্সের আয়োজন। যার সুন্দর অনুভুতি স্মৃতির পাতায় থেকে যায় বহুদিন। যা কাজে নতুন উৎসাহ ও উদ্দিপনা যোগায়।

৭. এন্টারটেইন্টমেন্ট

গিফট ও লাঞ্চের পাশাপাশি প্রোগ্রামগুলোতে থাকে এন্টারটেইন্টমেন্টের ব্যবস্থা।  যেমন, অনেক ধরনের মজাদার ব্রেইনস্টর্মিং গেম, কুইজ এবং লটারি সেশান। যা বাড়তি এক্সাইট্মেন্ট যোগায়। সুতরাং এ সমস্ত কিছুর জন্য মিট আপ  প্রোগ্রামগুলোতে অংশগ্রহণ করা জরুরি।

এছাড়াও ফটোসেশান পর্ব তো আছেই। যা আপনার সোশাল সাইটে পাবলিশ করার মাধ্যমে আপনার পরিচিতি বাড়ানোর পাশাপাশি আপনার ভ্যালু বাড়াবে।

মিট আপ প্রোগ্রামে আপনার করনীয় কি ?

প্রোগ্রামে যাওয়ার আগে অবশ্যই খাতায় নোট করে নিবেন আপনি কি কি প্রশ্ন করবেন, আপনার কি কি বিষয় গুলো জানার আছে এবং আপনি কি কি সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন এ সমস্ত কিছুর বিস্তারিত। এছাড়া এক্সপার্টদের সেশন গুলি থেকে আপনি কি কি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জানতে পারলেন সে সমস্ত কিছু খাতায় পয়েন্ট করে রাখবেন। যা আপনার পরবর্তীতে বেশ কাজে লাগবে। 

মিট আপ প্রোগ্রাম থেকে ফিরে আপনার করনীয় কি?

মিট আপ প্রোগ্রাম থেকে ফেরার পরে পুরো দিনের যা অভিজ্ঞতা হয়েছে তা অবশ্যই আপনার সোশ্যাল সাইটে গল্পের আকারে লিখে শেয়ার করবেন। যাতে এদিনটি আপনার স্মৃতির পাতায় একটি অংশ হিসেবে থাকে। প্রয়োজনীয় সমস্ত নোটগুলি আপনার গুগল ড্রাইভে অথবা আপনার পার্সোনাল ফাইলে সুন্দর ভাবে সেভ করে রাখতে পারেন। যেন যেকোনো প্রয়োজনে আপনি তথ্যগুলো পেতে পারেন।

সুতরাং উপরের সমস্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে বলা যায়, একটি মিট আপ প্রোগ্রাম ব্যক্তিজীবন থেকে শুরু করে প্রফেশনাল জীবন সর্বক্ষেত্রে সফলতার একটি মোক্ষম হাতিয়ার হিসেবে কাজ করে। তাই ক্যারিয়ার সচেতন মানুষদের মিট আপ প্রোগ্রামগুলোতে অংশগ্রহণ করা অতীব জরুরী।

Comments (4)

  1. Masud

    I am ready to attend
    This is very good opportunity for fresher and experienced people.

    1. Sharin Khanam

      Thank You

    2. Pixency Academy

      Thanks for your opinion. Stay with Pixency Academy

  2. MD Emon Hossen

    great job..

Leave your thought here

Your email address will not be published.

Select the fields to be shown. Others will be hidden. Drag and drop to rearrange the order.
  • Image
  • SKU
  • Rating
  • Price
  • Stock
  • Availability
  • Add to cart
  • Description
  • Content
  • Weight
  • Dimensions
  • Additional information
  • Attributes
  • Custom attributes
  • Custom fields
Click outside to hide the compare bar
Compare
Wishlist 0
Open wishlist page Continue shopping