fbpx

The rule of thirds – Basic composition rules Bangla | Part-1

The rule of thirds - Basic composition rules
UX Design

The rule of thirds – Basic composition rules Bangla | Part-1

একটি ডিজাইনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হল কম্পোজিশন। কম্পোজিশন এর বাংলা অর্থ  “গঠন”। অর্থাৎ কম্পোজিশন হল একটি ছবি বা ডিজাইনের উপাদান সাজানোর একটি উপায়।  আরও সহজ ভাষায় বলতে গেলে, আমরা একটি ফ্রেমে কয়েকটি উপাদান সাজানোর জন্য যে নিয়ম বা নীতি অনুসরণ করব তাকেই কম্পোজিশন বলে।

বেসিক কম্পোজিশন রুলস 

ডিজাইন কম্পোজিশন দশটি মৌলিক নীতি অনুসরণ করে। সর্বপ্রথম নীতি হলো, “রুল অফ থার্ডস”। আসুন জেনে নেওয়া যাক এই “রুল অফ থার্ডস” মূলনীতিটি আসলে কি!

Group 1

“রুল অফ থার্ডস” এর বাংলা অর্থ হলো “তৃতীয়াংশের নিয়ম”। উপরের ডিজাইনটিতে লক্ষ্য করলে আমরা দেখতে পাই একটি ডিজাইনকে কতগুলো আয়তকার অংশে বিভক্ত করা হয়েছে। এখানে প্রতিটি আয়তকার অংশের পরিমাপ সমান। এই নিয়মে, ফ্রেমটি সমানভাবে নয়টি আয়তক্ষেত্রে বিভক্ত। উপরে আমরা তিনটি লাল রংয়ের অ্যারো চিহ্ন দেখতে পাই। এই চিহ্ন আমাদের দৃষ্টির গতিবিধি কে নির্দেশ করে। “রুল অফ থার্ড” এর ব্যবহার ঘটাতে মনে মনে 

ফ্রেমটির মাঝখানে চারটি রেখা টেনে নিতে হবে। দুটি লম্বালম্বি এবং দুটি আড়াআড়ি। তাহলে দেখা যাবে, লাইনগুলো যেখানে মধ্যচ্ছেদ করে সেখানে সাবজেক্টকে বসালে ডিজাইনটি অধিক অর্থবহ ও দৃষ্টিনন্দন হয়ে উঠে। নিচের ডায়াগ্রামটি অনুসারে, চারটি মধ্যচ্ছেদ করা বিন্দু গুলোকে বলা হয়ে থাকে পাওয়ারপয়েন্ট এই পাওয়ার পয়েন্ট গুলোতে ডিজাইনের উপাদানসমূহকে প্রতিস্থাপন করলে ছবির মধ্যে একটি উত্তেজনা সৃষ্টি করবে সাবজেক্টের দু’দিকের অসমান জায়গার জন্য। 

Group 2

উপরের ডায়াগ্রামটি লক্ষ্য করলে দেখতে পাই যে প্রথম পাওয়ার পয়েন্টিতে পাঠকের ৪১% মনোযোগ আকর্ষন করে। অর্থাৎ আপনি ডিজাইন করার সময় পাঠকের ৪১% মনোযোগ ধরে রাখার জন্য মূল উপাদান্টি প্রথম পাওয়ার পয়েন্টে প্রতিস্থাপন করুন। এরপর দ্বিতীয় পাওয়ার পয়েন্টি ২৫% মনোযোগ ধরে রাখতে সক্ষম। এখানে ইংরেজী “জেড” এবং ”এফ” প্যাটার্নের মুলনীতির সংমিশ্রন লক্ষ্য করতে পারি। ডিজাইনের দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ন উপাদান গুলি এই পাওয়ার পয়েন্টে প্রতিস্থাপন করলে কম্পোজিশনের সঠিক ব্যবহার করা সক্ষম হবে। এরপরে আমরা যদি তৃতীয় পাওয়ার পয়েন্টের দিকে লক্ষ্য করি তাহলে দেখতে পাই পাঠকের ২০% মনোযোগ ধরে রাখতে সক্ষম এবং সর্বশেষ পাওয়ার পয়েন্টে ১৪% মনোযোগ ধরে রাখা সক্ষম।

তাহলে উপরের আলোচনা থেকে আমরা বুঝতে পারি যে “রুল অফ থার্ডস” বা “তৃতীয়াংশের নিয়ম” অনুসরন করে একটি ডিজাইন করা হলে তা সামঞ্জস্যপুর্ন এবং একইসাথে দৃষ্টিনন্দন হয়ে উঠে ।

 

আজকে আমাদের আলোচনা পর্ব “রুল অফ থার্ডস” টপিকটি এখানেই শেষ । আজকে আলোচনার মধ্য দিয়ে আমরা “রুল অফ থার্ডস” বিষয়টির প্রাথমিক থেকে অ্যাডভান্স পর্যায়ে ধারণা দিতে সক্ষম হয়েছি। একজন ডিজাইনার যেন তার ডিজাইনের কোন পয়েন্ট অনুযায়ী এলিমেন্ট ব্যবহার করলে পাঠক তার মনোযোগ বেশি ধরে রাখতে পারবে এবং সাথে সাথে ডিজাইনটও অধিক আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে তার একটি পরিষ্কার ধারণা পাওয়া গিয়েছে। পরবর্তী  টপিক নিয়ে খুব শীঘ্রই আসছি। আমাদের সাথেই থাকুন।

Comment (1)

  1. Ferdous Azam

    Absolutely, This is helpful post for me.
    Thank you for this blog.

Leave your thought here

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Select the fields to be shown. Others will be hidden. Drag and drop to rearrange the order.
  • Image
  • SKU
  • Rating
  • Price
  • Stock
  • Availability
  • Add to cart
  • Description
  • Content
  • Weight
  • Dimensions
  • Additional information
  • Attributes
  • Custom attributes
  • Custom fields
Click outside to hide the compare bar
Compare
Wishlist 0
Open wishlist page Continue shopping